ঢাকা ০৮:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জমি সংক্রান্ত বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতাকে অস্ত্র ঠেকিয়ে লুটপাটের অভিযোগ।

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপলোড সময় : ১১:২০:২২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪
  • / ২৩২ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর ডেমরায় সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা করে ৫০ লাখ টাকা নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ সামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজ ইউনিট আওয়ামীলীগ সভাপতি মনিরুজ্জামান মনিরের। জমি ক্রয়ের উদ্দেশ্যে মোশারফ হোসেনকে ১ কোটি পয়ত্রিশ লাখ টাকা রেজিস্ট্রি বায়না করেন মনির।
বাকি টাকা পরিশোধ পুর্বক জমি হস্তান্তরের কথা থাকলেও বায়নার টাকা আত্মসাৎ করতে ভাড়া করা গুন্ডা আওয়ামীলীগ নামধারী অস্ত্রধারী গুন্ডা বাহীনি নিয়ে মনিরুজ্জামান মনিরের নিজ বাড়ির ভিতর ঢুকে অস্ত্র ঠেকিয়ে ৫০ লাখ টাকা নিয়ে যায় সন্ত্রাসী পলক বাহীনি।
প্রায় ১০০ শত মটর সাইকেল নিয়ে এলাকায় সিনেমা স্টাইলে মহড়া দিয়ে আতংক তৈরী করে এলাকাবাসীকে নিশ্চুপ করে দেয়। মনিরের পরিবারের অভিযোগ এলাকার কিছু দূস্কৃতিকারীর যোগ সাজসে এমন সন্ত্রাসী তান্ডব করার সুযোগ পেয়েছে।
ভুক্তভোগী মনির বলেন, সন্ত্রাসী ফুয়াদ হোসেন পলকের সাথে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে কোন বিরোধ নেই।
দলীয় প্রভাব দেখিয়ে সরাসরী পিস্তল ঠেকিয়ে প্রদেয় টাকার মায়া ছেড়ে দিতে বলেন, এবং সামনে বাড়াবাড়ি করলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে যায়।
এলাকাবাসী বলেন, ঘটনার সময় আমরা এত লোকজন দেখে আতংকিত হয়ে যাই! মনিরের বাড়ির ভিতরে প্রবেশ করতে চাইলে সন্ত্রাসীরা চর থাপ্পর মেরে বের করে দেয়।
সন্ত্রাসীদের নেতৃত্ব দিতে দেখা যায়, ১ ফুয়াদ হোসেন পলক, ২ ডগাইরের মিজান ৩ মেহেদীকে।
ঘটনাস্থলে গুরুতর আহতাবস্থায় মনিরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
পিস্তলের বাট দিয়ে মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত করে মনিরুজ্জামান মনির মাষ্টার, পিতা আব্দুল হাকিম ও ছোট ভাই মহসিন, শিমুল, টিপু সর্ব ঠিকানা: মুসলিম নগর, ৬৫ নং ওয়ার্ড , ডেমরা, ঢাকা।

মনিরের পরিবার বলেন, তারা নিশ্চিত হয়ে পরিকল্পিত ভাবে টাকা আছে ওভার কনফার্ম হয়ে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে ৫০ লাখ টাকা নিয়ে যায়।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ভুক্তভোগীরা জানান, ১ কোটি পয়ত্রিশ লাখ টাকা দেওয়া হয়েছে বাকি ৫০ লাখ টাকা ঘটনার দিন দেওয়ার কথা ছিল, মোশাররফ হোসেন ষড়যন্ত্র করে পলক কে দিয়ে ফোনে টাকা চায়।

মোশাররফ হোসেনকে সাথে নিয়ে এসে টাকা নিয়ে যাওয়ার কথা বলা হয় এরপরই এই ঘটনাটি ঘটে।
তাতক্ষনিক প্রশাসনের সহায়তা চাইলে ডেমরা থানার সাব ইনস্পেক্টর আতিক এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং মামলা করার পরামর্শ দেন।

এ বিষয়ে ডেমরা থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে’ যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবী জানিয়েছেন মনিরের পরিবার।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

জমি সংক্রান্ত বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতাকে অস্ত্র ঠেকিয়ে লুটপাটের অভিযোগ।

আপলোড সময় : ১১:২০:২২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪

রাজধানীর ডেমরায় সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা করে ৫০ লাখ টাকা নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ সামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজ ইউনিট আওয়ামীলীগ সভাপতি মনিরুজ্জামান মনিরের। জমি ক্রয়ের উদ্দেশ্যে মোশারফ হোসেনকে ১ কোটি পয়ত্রিশ লাখ টাকা রেজিস্ট্রি বায়না করেন মনির।
বাকি টাকা পরিশোধ পুর্বক জমি হস্তান্তরের কথা থাকলেও বায়নার টাকা আত্মসাৎ করতে ভাড়া করা গুন্ডা আওয়ামীলীগ নামধারী অস্ত্রধারী গুন্ডা বাহীনি নিয়ে মনিরুজ্জামান মনিরের নিজ বাড়ির ভিতর ঢুকে অস্ত্র ঠেকিয়ে ৫০ লাখ টাকা নিয়ে যায় সন্ত্রাসী পলক বাহীনি।
প্রায় ১০০ শত মটর সাইকেল নিয়ে এলাকায় সিনেমা স্টাইলে মহড়া দিয়ে আতংক তৈরী করে এলাকাবাসীকে নিশ্চুপ করে দেয়। মনিরের পরিবারের অভিযোগ এলাকার কিছু দূস্কৃতিকারীর যোগ সাজসে এমন সন্ত্রাসী তান্ডব করার সুযোগ পেয়েছে।
ভুক্তভোগী মনির বলেন, সন্ত্রাসী ফুয়াদ হোসেন পলকের সাথে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে কোন বিরোধ নেই।
দলীয় প্রভাব দেখিয়ে সরাসরী পিস্তল ঠেকিয়ে প্রদেয় টাকার মায়া ছেড়ে দিতে বলেন, এবং সামনে বাড়াবাড়ি করলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে যায়।
এলাকাবাসী বলেন, ঘটনার সময় আমরা এত লোকজন দেখে আতংকিত হয়ে যাই! মনিরের বাড়ির ভিতরে প্রবেশ করতে চাইলে সন্ত্রাসীরা চর থাপ্পর মেরে বের করে দেয়।
সন্ত্রাসীদের নেতৃত্ব দিতে দেখা যায়, ১ ফুয়াদ হোসেন পলক, ২ ডগাইরের মিজান ৩ মেহেদীকে।
ঘটনাস্থলে গুরুতর আহতাবস্থায় মনিরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
পিস্তলের বাট দিয়ে মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত করে মনিরুজ্জামান মনির মাষ্টার, পিতা আব্দুল হাকিম ও ছোট ভাই মহসিন, শিমুল, টিপু সর্ব ঠিকানা: মুসলিম নগর, ৬৫ নং ওয়ার্ড , ডেমরা, ঢাকা।

মনিরের পরিবার বলেন, তারা নিশ্চিত হয়ে পরিকল্পিত ভাবে টাকা আছে ওভার কনফার্ম হয়ে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে ৫০ লাখ টাকা নিয়ে যায়।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ভুক্তভোগীরা জানান, ১ কোটি পয়ত্রিশ লাখ টাকা দেওয়া হয়েছে বাকি ৫০ লাখ টাকা ঘটনার দিন দেওয়ার কথা ছিল, মোশাররফ হোসেন ষড়যন্ত্র করে পলক কে দিয়ে ফোনে টাকা চায়।

মোশাররফ হোসেনকে সাথে নিয়ে এসে টাকা নিয়ে যাওয়ার কথা বলা হয় এরপরই এই ঘটনাটি ঘটে।
তাতক্ষনিক প্রশাসনের সহায়তা চাইলে ডেমরা থানার সাব ইনস্পেক্টর আতিক এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং মামলা করার পরামর্শ দেন।

এ বিষয়ে ডেমরা থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে’ যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবী জানিয়েছেন মনিরের পরিবার।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন