ঢাকা ০৭:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কেরানীগঞ্জে সারিঘাটের কাশবনে প্রকৃতিপ্রেমীদের ঢল

মো: শাহিন (নিজস্ব প্রতিবেদক)
মো: শাহিন (নিজস্ব প্রতিবেদক)
  • আপলোড সময় : ০২:৩৫:৪৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৮৫১ বার পড়া হয়েছে

শরৎ মানেই কাশফুল! আকাশে নরম তুলোর মতো শুভ্র মেঘের ভেসে বেড়ানো আর দিগন্তজোড়া প্রান্তরে কাশফুলের মনোরম দৃশ্য। ঝকঝকে নীল আকাশে ভেসে বেড়ানো সাদা মেঘের ভেলা আর কাশফুলের শুভ্র আভাই জানিয়ে দিচ্ছে প্রকৃতিতে এসেছে শরত। কেরানীগঞ্জের সারিঘটে দিগন্ত বৃস্রত মাঠজুড়ে এখন সাদা মেঘের ভেলা। শরতের এমন মোহনীয় সুন্দর্য উপভোগ করতে প্রতিদিন ভিড় করছেন অসংখ্য প্রকৃতি প্রেমি মানুষ।শুভ্র কাশফুলকে সঙ্গীকরে কেউ বসে গল্প করছেন। কেউবা ফুলের সঙ্গে ছবি তুলছেন। পরিবার-পরিজন নিয়ে অনেকেই আসছেন এই কাশবনে। দুপুরের খরতাপ খানিকটা ম্লান হয়ে বেলা গড়ালে। তখন লোকসমাগমে জমজমাট হয়ে ওঠে কেরানীগঞ্জের সারিঘাট এলাকা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়,
ঢাকার কেরানীগঞ্জে কাশফুলের সবচেয়ে জনপ্রিয় জায়গা বসুন্ধরা রিভারভিউর সারিঘাট। শহরের যান্ত্রিক দিক থেকে সরে কিছুটা প্রাকৃতিক ছোঁয়া ও সবুজঘেরা পরিবেশের সঙ্গে নৌকা ভ্রমণে প্রতিদিন হাজার হাজার প্রকৃতিপ্রেমীদের ঢল নামছে সারিঘাটে।
প্রকৃতিপ্রেমীরা কাশফুলের সংস্পর্শে
আনন্দে হারিয়ে যাচ্ছেন কাশবনে। কেউ তুলছেন ছবি। কেউবা হাত বুলিয়ে নিচ্ছেন কাশফুলে।

সারিঘাটে নিয়মিত ভ্রমণে আসা খোকন মিয়া বলেন, আমার এক মামা বসুন্ধরা রিভারভিউ আবাসিক এলাকায় থাকেন। মামার বাসায় বেড়াতে এলে সারিঘাট নিয়ে আসেন। এখানকার খালের স্বচ্ছ পানিতে গোসল করা যায়। আর কাশফুলের বনে হারিয়ে যেতে কার না ভালো লাগে। এখানে এলে হারিয়ে যাই গ্রাম বাংলার চিরচেনা প্রকৃতির মাঝে।
তাই তো বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে নিয়মিত আসি।

শরতের কাশফুল দেখতে সারিঘাট এলাকায় পরিবার নিয়ে ঘুড়তে আসেন
রফিকুল ইসলাম নামে এক স্কুল শিক্ষক। তিনি জানান, স্ত্রী-সন্তান বায়না করলেও নানা ব্যস্ততার কারণে কোথাও ঘুড়তে যেতে পারি না। তাই পরিবার নিয়ে শরতের এই কাশফুল দেখতে চলে এলাম। এখানে এসে অনেক ভালো লাগছে। সাদা মেঘের ভেলায় কাশফুল যখন বাতাসের সঙ্গে দোল খায় কাশফুলগুলোর সৌন্দর্য তখন আরো বেড়ে যায়। যেদিকে চোখ পড়ে সেদিকেই সাদা। বাচ্চারাও খুব মজা করছে কাশফুলের সঙ্গে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

কেরানীগঞ্জে সারিঘাটের কাশবনে প্রকৃতিপ্রেমীদের ঢল

আপলোড সময় : ০২:৩৫:৪৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩

শরৎ মানেই কাশফুল! আকাশে নরম তুলোর মতো শুভ্র মেঘের ভেসে বেড়ানো আর দিগন্তজোড়া প্রান্তরে কাশফুলের মনোরম দৃশ্য। ঝকঝকে নীল আকাশে ভেসে বেড়ানো সাদা মেঘের ভেলা আর কাশফুলের শুভ্র আভাই জানিয়ে দিচ্ছে প্রকৃতিতে এসেছে শরত। কেরানীগঞ্জের সারিঘটে দিগন্ত বৃস্রত মাঠজুড়ে এখন সাদা মেঘের ভেলা। শরতের এমন মোহনীয় সুন্দর্য উপভোগ করতে প্রতিদিন ভিড় করছেন অসংখ্য প্রকৃতি প্রেমি মানুষ।শুভ্র কাশফুলকে সঙ্গীকরে কেউ বসে গল্প করছেন। কেউবা ফুলের সঙ্গে ছবি তুলছেন। পরিবার-পরিজন নিয়ে অনেকেই আসছেন এই কাশবনে। দুপুরের খরতাপ খানিকটা ম্লান হয়ে বেলা গড়ালে। তখন লোকসমাগমে জমজমাট হয়ে ওঠে কেরানীগঞ্জের সারিঘাট এলাকা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়,
ঢাকার কেরানীগঞ্জে কাশফুলের সবচেয়ে জনপ্রিয় জায়গা বসুন্ধরা রিভারভিউর সারিঘাট। শহরের যান্ত্রিক দিক থেকে সরে কিছুটা প্রাকৃতিক ছোঁয়া ও সবুজঘেরা পরিবেশের সঙ্গে নৌকা ভ্রমণে প্রতিদিন হাজার হাজার প্রকৃতিপ্রেমীদের ঢল নামছে সারিঘাটে।
প্রকৃতিপ্রেমীরা কাশফুলের সংস্পর্শে
আনন্দে হারিয়ে যাচ্ছেন কাশবনে। কেউ তুলছেন ছবি। কেউবা হাত বুলিয়ে নিচ্ছেন কাশফুলে।

সারিঘাটে নিয়মিত ভ্রমণে আসা খোকন মিয়া বলেন, আমার এক মামা বসুন্ধরা রিভারভিউ আবাসিক এলাকায় থাকেন। মামার বাসায় বেড়াতে এলে সারিঘাট নিয়ে আসেন। এখানকার খালের স্বচ্ছ পানিতে গোসল করা যায়। আর কাশফুলের বনে হারিয়ে যেতে কার না ভালো লাগে। এখানে এলে হারিয়ে যাই গ্রাম বাংলার চিরচেনা প্রকৃতির মাঝে।
তাই তো বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে নিয়মিত আসি।

শরতের কাশফুল দেখতে সারিঘাট এলাকায় পরিবার নিয়ে ঘুড়তে আসেন
রফিকুল ইসলাম নামে এক স্কুল শিক্ষক। তিনি জানান, স্ত্রী-সন্তান বায়না করলেও নানা ব্যস্ততার কারণে কোথাও ঘুড়তে যেতে পারি না। তাই পরিবার নিয়ে শরতের এই কাশফুল দেখতে চলে এলাম। এখানে এসে অনেক ভালো লাগছে। সাদা মেঘের ভেলায় কাশফুল যখন বাতাসের সঙ্গে দোল খায় কাশফুলগুলোর সৌন্দর্য তখন আরো বেড়ে যায়। যেদিকে চোখ পড়ে সেদিকেই সাদা। বাচ্চারাও খুব মজা করছে কাশফুলের সঙ্গে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন