ঢাকা ১০:৪৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারে হাজতি মৃত্যু

মো: শাহিন (নিজস্ব প্রতিবেদক)
মো: শাহিন (নিজস্ব প্রতিবেদক)
  • আপলোড সময় : ১১:৪৯:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২৩
  • / ৩২৪ বার পড়া হয়েছে

ঢাকার কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারে সফি উদ্দিন নামে এক হাজতি মৃত্যু হয়েছে। আজ সোমবার বিকাল ৪ টায় দিকে অসুস্থ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত সফি উদ্দিন গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া থানার রাওনাট গ্রামের ইউসুফ আলীর ছেলে।

কারা কতৃপক্ষ জানান, বিকাল দিকে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। হাজতি সফি উদ্দিন বিস্ফোরণ আইনে দায়েরকৃত মামলায় গাজীপুর কারাগারে বন্দী ছিলেন। সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কিডনি ও ডায়াবেটিস রোগের চিকিৎসার জন্য গাজীপুর থেকে রেফার্ড হয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার আসেন।তার হাজতি নং- ৫৮৪৭৩/২৩

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, হাজতির মরদেহটি জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে। একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে তার সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হবে। ময়নাতদন্তের পর কারা কর্তৃপক্ষের আনুষ্ঠানিকতা শেষে পরিবারের কাছে তার মরদেহটি হস্তান্তর করা হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারে হাজতি মৃত্যু

আপলোড সময় : ১১:৪৯:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২৩

ঢাকার কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারে সফি উদ্দিন নামে এক হাজতি মৃত্যু হয়েছে। আজ সোমবার বিকাল ৪ টায় দিকে অসুস্থ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত সফি উদ্দিন গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া থানার রাওনাট গ্রামের ইউসুফ আলীর ছেলে।

কারা কতৃপক্ষ জানান, বিকাল দিকে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। হাজতি সফি উদ্দিন বিস্ফোরণ আইনে দায়েরকৃত মামলায় গাজীপুর কারাগারে বন্দী ছিলেন। সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কিডনি ও ডায়াবেটিস রোগের চিকিৎসার জন্য গাজীপুর থেকে রেফার্ড হয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার আসেন।তার হাজতি নং- ৫৮৪৭৩/২৩

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, হাজতির মরদেহটি জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে। একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে তার সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হবে। ময়নাতদন্তের পর কারা কর্তৃপক্ষের আনুষ্ঠানিকতা শেষে পরিবারের কাছে তার মরদেহটি হস্তান্তর করা হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন