ঢাকা ০৪:২৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যে ৪ কারণে রাজকে তালাক দিলেন পরী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপলোড সময় : ০২:০৬:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৬২৯ বার পড়া হয়েছে

অভিনয় জগতের কাজের বাইরে দাম্পত্য কলহের কারণে বছরজুড়ে খবরের শিরোনাম হয়েছেন শরিফুল রাজ ও পরীমণি। এবার স্বামী শরীফুল রাজকে ডিভোর্স দিয়েছেন পরী। রাজকে সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) ডিভোর্স লেটার পাঠিয়েছেন তিনি। যেখানে তালাকের কারণ হিসেবে চারটি বিষয়কে সামনে এনেছেন তিনি।
গেল মে মাসে অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামালের সঙ্গে রাজের কিছু বিশেষ মুহূর্তের ছবি ও ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর তাদের বিচ্ছেদ অবধারিত হয়ে পড়েছিল বলে মন্তব্য করেছিলেন পরীর ঘনিষ্ঠজনরা। অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিমের সঙ্গেও রাজকে জড়িয়ে মন্তব্য করেছিলেন নায়িকা। তবে পরী কারণ হিসেবে সেগুলো উল্লেখ করেননি বিচ্ছেদপত্রে।
রাজকে ডিভোর্স লেটার পাঠালেন পরীমণি- সেখানে তিনি কারণ হিসেবে জানান ১. মনের অমিল হওয়া, ২. বনিবনা না হওয়া, ৩. খোঁজ না নেওয়া ও ৪. মানসিক অশান্তি জন্য ১৮ নং কলাম অনুযায়ী বিবাহ বন্ধন ছিন্ন করতে চান।

এর আগে চলতি বছরের শুরুতে স্বামী তাকে মারধর করেন বলে অভিযোগ দেন পরীমণি। সে সময় ফেসবুকে এই অভিনেত্রী একটি পোস্ট দেন, সেখানে তিনি তার রক্তাক্ত বিছানার ছবিও পোস্ট করেন। তখন স্পষ্টতই জানান, এভাবে তিনি আর রাজের সঙ্গে থাকতে চাইছেন না। এরপর বেশ কয়েক দফায় অভিমান ভুলে এক হলেও বেশকিছু দিন ধরে তাদের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না।
প্রসঙ্গত, ২০২২ সালের ২১ জানুয়ারি হলুদ অনুষ্ঠানের পর ২২ জানুয়ারি রাতে জমকালো আয়োজনে শরিফুল রাজ-পরীমণির বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। অতিথির তালিকায় ছিলেন তিন নির্মাতা গিয়াস উদ্দিন সেলিম, চয়নিকা চৌধুরী ও রেদওয়ান রনি। সঙ্গে দুই পরিবারের স্বজনরা।

২০১৫ সালে ‘ভালোবাসা সীমাহীন’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় পরীমণির। সে বছর ‘রানা প্লাজা’ ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়ে আলোচনায় আসেন তিনি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

যে ৪ কারণে রাজকে তালাক দিলেন পরী

আপলোড সময় : ০২:০৬:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩

অভিনয় জগতের কাজের বাইরে দাম্পত্য কলহের কারণে বছরজুড়ে খবরের শিরোনাম হয়েছেন শরিফুল রাজ ও পরীমণি। এবার স্বামী শরীফুল রাজকে ডিভোর্স দিয়েছেন পরী। রাজকে সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) ডিভোর্স লেটার পাঠিয়েছেন তিনি। যেখানে তালাকের কারণ হিসেবে চারটি বিষয়কে সামনে এনেছেন তিনি।
গেল মে মাসে অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামালের সঙ্গে রাজের কিছু বিশেষ মুহূর্তের ছবি ও ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর তাদের বিচ্ছেদ অবধারিত হয়ে পড়েছিল বলে মন্তব্য করেছিলেন পরীর ঘনিষ্ঠজনরা। অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিমের সঙ্গেও রাজকে জড়িয়ে মন্তব্য করেছিলেন নায়িকা। তবে পরী কারণ হিসেবে সেগুলো উল্লেখ করেননি বিচ্ছেদপত্রে।
রাজকে ডিভোর্স লেটার পাঠালেন পরীমণি- সেখানে তিনি কারণ হিসেবে জানান ১. মনের অমিল হওয়া, ২. বনিবনা না হওয়া, ৩. খোঁজ না নেওয়া ও ৪. মানসিক অশান্তি জন্য ১৮ নং কলাম অনুযায়ী বিবাহ বন্ধন ছিন্ন করতে চান।

এর আগে চলতি বছরের শুরুতে স্বামী তাকে মারধর করেন বলে অভিযোগ দেন পরীমণি। সে সময় ফেসবুকে এই অভিনেত্রী একটি পোস্ট দেন, সেখানে তিনি তার রক্তাক্ত বিছানার ছবিও পোস্ট করেন। তখন স্পষ্টতই জানান, এভাবে তিনি আর রাজের সঙ্গে থাকতে চাইছেন না। এরপর বেশ কয়েক দফায় অভিমান ভুলে এক হলেও বেশকিছু দিন ধরে তাদের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না।
প্রসঙ্গত, ২০২২ সালের ২১ জানুয়ারি হলুদ অনুষ্ঠানের পর ২২ জানুয়ারি রাতে জমকালো আয়োজনে শরিফুল রাজ-পরীমণির বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। অতিথির তালিকায় ছিলেন তিন নির্মাতা গিয়াস উদ্দিন সেলিম, চয়নিকা চৌধুরী ও রেদওয়ান রনি। সঙ্গে দুই পরিবারের স্বজনরা।

২০১৫ সালে ‘ভালোবাসা সীমাহীন’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় পরীমণির। সে বছর ‘রানা প্লাজা’ ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়ে আলোচনায় আসেন তিনি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন