ঢাকা ০৩:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সোনারগাঁয়ে ফার্নিচার গোডাউনে ভয়ানক অগ্নিকাণ্ড, পুড়ে ছাই তিন কোটি টাকার কাঠ

সোনারগাঁ প্রতিনিধি
সোনারগাঁ প্রতিনিধি
  • আপলোড সময় : ১০:৪২:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৪৬০ বার পড়া হয়েছে

সোনারগাঁও উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের ইউসুফগঞ্জ এলাকায় একটি ফার্নিচার দোকানের গোডাউনে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডার ঘটে। গতকাল মঙ্গলবার গভীর রাতে এ ঘটনার খবর পাওয়া যায়।

ঢাকা ক্লাসিক ফার্নিচার এন্ড ডোর সেন্টার নামের ওই গোডাউনে রক্ষিত বিপুল পরিমাণ সেগুন কাঠ ও গামারী কাঠসহ তৈরি ফার্নিচার সংরক্ষিত ছিল। যার আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় তিন কোটি চল্লিশ হাজার টাকা।

অগ্নিকান্ডে গোডাউনে থাকা সব কাঠের মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ফার্নিচার দোকানের মালিক অনিল দাস জানান, রাত দুইটা পয়তাল্লিশ মিনিটে মার্কেটের পাহারাদার আমাকে মোবাইলে আগুন লাগার খবর দেয়। আমি ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখি ফায়ার সার্ভিসের লোকজন আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। কিন্তু আশপাশে পানি না থাকায় প্রয়োজনীয় পানির সংকটে আগুন নেভানো বাঁধার মুখে পরে।

প্রয়োজনীয় পানির সমস্যায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার আগেই গোডাউন ঘর ও সকল মালামাল ভস্মিভূত হয়ে যায়।

অনিল দাস আরো বলেন, কয়েক মাস আগে তিনি এ গোডাউনটি স্থানীয় আবুল মিয়ার কাছ থেকে ভাড়া নিয়েছেন। তিনি অনেক টাকা ব্যাংক ঋন নিয়ে এ ব্যবসা শুরু করেছেন।

চলতি মাসের ১৩ তারিখেও তিনি প্রায় ছয় লক্ষ টাকার নতুন সেগুন কাঠ মজুদ করেছিলেন।

এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় একটি জিডি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সোনারগাঁ থানার (তদন্ত ওসি আহসানুল্লাহ) জানান, এ ঘটনার সাথে যদি কেউ জড়িত থাকে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

সোনারগাঁয়ে ফার্নিচার গোডাউনে ভয়ানক অগ্নিকাণ্ড, পুড়ে ছাই তিন কোটি টাকার কাঠ

আপলোড সময় : ১০:৪২:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

সোনারগাঁও উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের ইউসুফগঞ্জ এলাকায় একটি ফার্নিচার দোকানের গোডাউনে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডার ঘটে। গতকাল মঙ্গলবার গভীর রাতে এ ঘটনার খবর পাওয়া যায়।

ঢাকা ক্লাসিক ফার্নিচার এন্ড ডোর সেন্টার নামের ওই গোডাউনে রক্ষিত বিপুল পরিমাণ সেগুন কাঠ ও গামারী কাঠসহ তৈরি ফার্নিচার সংরক্ষিত ছিল। যার আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় তিন কোটি চল্লিশ হাজার টাকা।

অগ্নিকান্ডে গোডাউনে থাকা সব কাঠের মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ফার্নিচার দোকানের মালিক অনিল দাস জানান, রাত দুইটা পয়তাল্লিশ মিনিটে মার্কেটের পাহারাদার আমাকে মোবাইলে আগুন লাগার খবর দেয়। আমি ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখি ফায়ার সার্ভিসের লোকজন আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। কিন্তু আশপাশে পানি না থাকায় প্রয়োজনীয় পানির সংকটে আগুন নেভানো বাঁধার মুখে পরে।

প্রয়োজনীয় পানির সমস্যায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার আগেই গোডাউন ঘর ও সকল মালামাল ভস্মিভূত হয়ে যায়।

অনিল দাস আরো বলেন, কয়েক মাস আগে তিনি এ গোডাউনটি স্থানীয় আবুল মিয়ার কাছ থেকে ভাড়া নিয়েছেন। তিনি অনেক টাকা ব্যাংক ঋন নিয়ে এ ব্যবসা শুরু করেছেন।

চলতি মাসের ১৩ তারিখেও তিনি প্রায় ছয় লক্ষ টাকার নতুন সেগুন কাঠ মজুদ করেছিলেন।

এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় একটি জিডি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সোনারগাঁ থানার (তদন্ত ওসি আহসানুল্লাহ) জানান, এ ঘটনার সাথে যদি কেউ জড়িত থাকে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন