ঢাকা ০৯:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নোয়াখালী পুলিশ কে.জি স্কুল কর্তৃক শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকিম শিক্ষাবৃত্তি পরীক্ষা-২০২৩ চালুর প্রক্রিয়া গৃহীত

মোহাম্মদ আবু নাছের (জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী)
মোহাম্মদ আবু নাছের (জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী)
  • আপলোড সময় : ০৬:৫৪:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৭৫৩ বার পড়া হয়েছে

বুধবার ( ১৮ অক্টোবর ) পুলিশ কে.জি স্কুল, নোয়াখালী কর্তৃক শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকিম শিক্ষাবৃত্তি পরীক্ষা-২০২৩খ্রি. চালুর প্রক্রিয়ায় প্রসপেক্টাস ও সিলেবাস প্রকাশ করেছে।

শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকীম(১৯১৯-১৯৭১):

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অসংখ্য গুণীজনের আত্মত্যাগ ও সাহসিকতার ইতিবৃত্ত রয়েছে। এমনই একজন মহান ও চির অবিনশ্বর ব্যক্তি শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকীম । ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে তিনি নোয়াখালী জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ২৫শে মার্চ কালো রাতে পাক হানাদার বাহিনীর ধ্বংসযজ্ঞ শুরু হলে তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধাদেরকে অস্ত্রাগার থেকে নিজ হাতে অস্ত্র তুলে দেন। পাক হানাদার বাহিনী বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশ সুপার আবদুল হাকীমকে ১৯৭১ সালের ৯ই মে তাঁর নিজ কর্মস্থল থেকে স্বপরিবারে নিয়ে যায় এবং নির্মমভাবে সকলকে হত্যা করে। এই দেশপ্রেমিক মহান বীরের স্মৃতিকে চির স্মরণীয় করে রাখার জন্য এবং তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান প্রদর্শনের জন্য নোয়াখালী জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) মো: শহীদুল ইসলাম, পিপিএম(বার) শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকীম শিক্ষা বৃত্তি” প্রবর্তন করেন।

পুলিশ কে.জি স্কেল প্রধান শিক্ষক প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের প্রতি বলেন, আপনি জেনে আনন্দিত হবেন যে, নোয়াখালী জেলা পুলিশ কর্তৃক ২০২৩ খ্রি: থেকে নোয়াখালীর শিক্ষার্থীদের মেধার প্রসার ও যোগ্যতা বিকাশের লক্ষ্যে তৃতীয় শ্রেণি থেকে ষষ্ঠ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের নিয়ে “শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকীম শিক্ষা বৃত্তি-২০২৩খ্রি:” আয়োজন করা হয়েছে। শিক্ষা বৃত্তিতে প্রতি শ্রেণিতে ৭ (সাত) জনকে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি প্রদান করা হবে। বৃত্তি প্রাপ্তদের নগদ অর্থ, ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান ছাড়াও পুলিশ কে.জি স্কুলে ১ (এক) বছরের জন্য বিনা বেতনে অধ্যয়নের সুযোগ রয়েছে। বৃত্তির রেজিস্ট্রেশন ফি তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণি ১০০(এক শত টাকা) এবং পঞ্চম ও ষষ্ঠ শ্রেণি ১৫০(একশত পঞ্চাশ টাকা)। উক্ত শিক্ষাবৃত্তি কার্যক্রমে আপনার বিদ্যালয় থেকে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণসহ সার্বিক সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি।

পরীক্ষার তারিখ :
তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণি- ০৮/১২/২০২৩খ্রি:
শুক্রবার সকাল ১০.০০টা
পঞ্চম ও ষষ্ঠ শ্রেণি-০৯/১২/২০২৩ খ্রি:
শনিবার সকাল ১০.০০টা
পরীক্ষার কেন্দ্র: পুলিশ কে.জি স্কুল, নোয়াখালী।

১। দুই কপি ছবিসহ রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণ করে নামের তালিকাসহ ৩০/১০/২০২৩ তারিখের মধ্যে জমা দিতে হবে।
২। পরীক্ষার নির্ধারিত সময়ের ৩০ মিনিট পূর্বে পরীক্ষার কেন্দ্রে অবশ্যই উপস্থিত থাকতে হবে।
৩। পরীক্ষার সময় ও বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে অবশ্যই প্রবেশ পত্র সঙ্গে আনতে হবে।
৪ । পরীক্ষার হলে ও বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে স্কুল ড্রেসে আসতে হবে ৫। প্রত্যেক শ্রেণির জন্য বিদ্যালয় কর্তৃক পৃথক পৃথক তালিকা তৈরী করতে হবে।
৬। পরীক্ষার সময় ১.৩০ ঘন্টা এবং পূর্ণমান ১০০ নম্বর।
৭। পরীক্ষা MCQ পদ্ধতিতে হবে।
৮। বৃত্তির ফলাফল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষককে অবহিত করা হবে।

#পরীক্ষার মানবন্টন
বাংলা-২৫ নম্বর, ইংরেজী-২৫ নম্বর, গণিত-২৫নম্বর
সাধারণ জ্ঞান-২৫ নম্বর।

শ্রেণি ভিত্তিক পরীক্ষার সিলেবাস:

# তৃতীয় শ্রেণিঃ
বাংলা-পাঠ্য বই, ইংরেজী- পাঠ্য বই, গণিত-পাঠ্য বই, সাধারণ জ্ঞান-সমাজ ও বিজ্ঞান পাঠ্য বই ।

# চতুর্থ শ্রেণিঃ
বাংলা-পাঠ্য বই, ইংরেজী- পাঠ্য বই, গণিত-পাঠ্য বই, সাধারণ জ্ঞান-সমাজ ও বিজ্ঞান পাঠ্য বই ।

# পঞ্চম শ্রেণিঃ
বাংলা-পাঠ্য বই, ইংরেজী- পাঠ্য বই, গণিত-পাঠ্য বই, সাধারণ জ্ঞান-সমাজ ও বিজ্ঞান পাঠ্য বই ।

# ষষ্ঠ শ্রেণিঃ
বাংলা-পাঠ্য বই, ইংরেজী- পাঠ্য বই, গণিত-পাঠ্য বই, সাধারণ জ্ঞান-সমাজ ও বিজ্ঞান পাঠ্য বই

সার্বিক যোগাযোগ: প্রধান শিক্ষক পুলিশ কে.জি স্কুল, নোয়াখালী । মোবাইল: ০১৭১৮৯৮৩২৭৬

নোয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার এসপি মোঃ শহীদুল ইসলাম পিপিএম বার জানান, শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকিম শিক্ষাবৃত্তি পরীক্ষা-২০২৩খ্রি. আয়োজন করেছি। সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতায় শিক্ষার অগ্রগতি সাধিত করতে বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে আমার বিশ্বাস।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

নোয়াখালী পুলিশ কে.জি স্কুল কর্তৃক শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকিম শিক্ষাবৃত্তি পরীক্ষা-২০২৩ চালুর প্রক্রিয়া গৃহীত

আপলোড সময় : ০৬:৫৪:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ অক্টোবর ২০২৩

বুধবার ( ১৮ অক্টোবর ) পুলিশ কে.জি স্কুল, নোয়াখালী কর্তৃক শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকিম শিক্ষাবৃত্তি পরীক্ষা-২০২৩খ্রি. চালুর প্রক্রিয়ায় প্রসপেক্টাস ও সিলেবাস প্রকাশ করেছে।

শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকীম(১৯১৯-১৯৭১):

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অসংখ্য গুণীজনের আত্মত্যাগ ও সাহসিকতার ইতিবৃত্ত রয়েছে। এমনই একজন মহান ও চির অবিনশ্বর ব্যক্তি শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকীম । ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে তিনি নোয়াখালী জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ২৫শে মার্চ কালো রাতে পাক হানাদার বাহিনীর ধ্বংসযজ্ঞ শুরু হলে তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধাদেরকে অস্ত্রাগার থেকে নিজ হাতে অস্ত্র তুলে দেন। পাক হানাদার বাহিনী বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশ সুপার আবদুল হাকীমকে ১৯৭১ সালের ৯ই মে তাঁর নিজ কর্মস্থল থেকে স্বপরিবারে নিয়ে যায় এবং নির্মমভাবে সকলকে হত্যা করে। এই দেশপ্রেমিক মহান বীরের স্মৃতিকে চির স্মরণীয় করে রাখার জন্য এবং তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান প্রদর্শনের জন্য নোয়াখালী জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) মো: শহীদুল ইসলাম, পিপিএম(বার) শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকীম শিক্ষা বৃত্তি” প্রবর্তন করেন।

পুলিশ কে.জি স্কেল প্রধান শিক্ষক প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের প্রতি বলেন, আপনি জেনে আনন্দিত হবেন যে, নোয়াখালী জেলা পুলিশ কর্তৃক ২০২৩ খ্রি: থেকে নোয়াখালীর শিক্ষার্থীদের মেধার প্রসার ও যোগ্যতা বিকাশের লক্ষ্যে তৃতীয় শ্রেণি থেকে ষষ্ঠ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের নিয়ে “শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকীম শিক্ষা বৃত্তি-২০২৩খ্রি:” আয়োজন করা হয়েছে। শিক্ষা বৃত্তিতে প্রতি শ্রেণিতে ৭ (সাত) জনকে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি প্রদান করা হবে। বৃত্তি প্রাপ্তদের নগদ অর্থ, ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান ছাড়াও পুলিশ কে.জি স্কুলে ১ (এক) বছরের জন্য বিনা বেতনে অধ্যয়নের সুযোগ রয়েছে। বৃত্তির রেজিস্ট্রেশন ফি তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণি ১০০(এক শত টাকা) এবং পঞ্চম ও ষষ্ঠ শ্রেণি ১৫০(একশত পঞ্চাশ টাকা)। উক্ত শিক্ষাবৃত্তি কার্যক্রমে আপনার বিদ্যালয় থেকে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণসহ সার্বিক সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি।

পরীক্ষার তারিখ :
তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণি- ০৮/১২/২০২৩খ্রি:
শুক্রবার সকাল ১০.০০টা
পঞ্চম ও ষষ্ঠ শ্রেণি-০৯/১২/২০২৩ খ্রি:
শনিবার সকাল ১০.০০টা
পরীক্ষার কেন্দ্র: পুলিশ কে.জি স্কুল, নোয়াখালী।

১। দুই কপি ছবিসহ রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণ করে নামের তালিকাসহ ৩০/১০/২০২৩ তারিখের মধ্যে জমা দিতে হবে।
২। পরীক্ষার নির্ধারিত সময়ের ৩০ মিনিট পূর্বে পরীক্ষার কেন্দ্রে অবশ্যই উপস্থিত থাকতে হবে।
৩। পরীক্ষার সময় ও বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে অবশ্যই প্রবেশ পত্র সঙ্গে আনতে হবে।
৪ । পরীক্ষার হলে ও বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে স্কুল ড্রেসে আসতে হবে ৫। প্রত্যেক শ্রেণির জন্য বিদ্যালয় কর্তৃক পৃথক পৃথক তালিকা তৈরী করতে হবে।
৬। পরীক্ষার সময় ১.৩০ ঘন্টা এবং পূর্ণমান ১০০ নম্বর।
৭। পরীক্ষা MCQ পদ্ধতিতে হবে।
৮। বৃত্তির ফলাফল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষককে অবহিত করা হবে।

#পরীক্ষার মানবন্টন
বাংলা-২৫ নম্বর, ইংরেজী-২৫ নম্বর, গণিত-২৫নম্বর
সাধারণ জ্ঞান-২৫ নম্বর।

শ্রেণি ভিত্তিক পরীক্ষার সিলেবাস:

# তৃতীয় শ্রেণিঃ
বাংলা-পাঠ্য বই, ইংরেজী- পাঠ্য বই, গণিত-পাঠ্য বই, সাধারণ জ্ঞান-সমাজ ও বিজ্ঞান পাঠ্য বই ।

# চতুর্থ শ্রেণিঃ
বাংলা-পাঠ্য বই, ইংরেজী- পাঠ্য বই, গণিত-পাঠ্য বই, সাধারণ জ্ঞান-সমাজ ও বিজ্ঞান পাঠ্য বই ।

# পঞ্চম শ্রেণিঃ
বাংলা-পাঠ্য বই, ইংরেজী- পাঠ্য বই, গণিত-পাঠ্য বই, সাধারণ জ্ঞান-সমাজ ও বিজ্ঞান পাঠ্য বই ।

# ষষ্ঠ শ্রেণিঃ
বাংলা-পাঠ্য বই, ইংরেজী- পাঠ্য বই, গণিত-পাঠ্য বই, সাধারণ জ্ঞান-সমাজ ও বিজ্ঞান পাঠ্য বই

সার্বিক যোগাযোগ: প্রধান শিক্ষক পুলিশ কে.জি স্কুল, নোয়াখালী । মোবাইল: ০১৭১৮৯৮৩২৭৬

নোয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার এসপি মোঃ শহীদুল ইসলাম পিপিএম বার জানান, শহীদ পুলিশ সুপার আবদুল হাকিম শিক্ষাবৃত্তি পরীক্ষা-২০২৩খ্রি. আয়োজন করেছি। সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতায় শিক্ষার অগ্রগতি সাধিত করতে বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে আমার বিশ্বাস।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন