ঢাকা ০৪:৩১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ট্যাংকলরির ট্যাংকির বিষাক্ত গ্যাসে যুবকের মৃত্যু, আহত ২

ইসমাইল হোসেন মিলন (সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি)
ইসমাইল হোসেন মিলন (সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি)
  • আপলোড সময় : ০২:৩৫:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ নভেম্বর ২০২৩
  • / ২৩৩ বার পড়া হয়েছে

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ট্যাংকলরির ট্যাংকির ভিতর থেকে ফার্নিস অয়েল সংগ্রহ করতে গিয়ে বিষাক্ত গ্যাসে আবু সাঈদ (২৫) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।
তবে এ ঘটনায় নিহত সাঈদের ছোটভাই এবং তার বাবা আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।
সোমবার (২৭ নভেম্বর) সকালে নাসিক ৬ নং ওয়ার্ডের আদমজী এসও রোড এলাকায় মেঘনা ডিপোর পাশে অবস্থিত একটি বালুর মাঠে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত আবু সাঈদ ওই এলাকার নাজির হোসেনের ছেলে। তিনি এসও রোড এলাকায় ইসমাঈলের তেলের গাড়ির ড্রাইভার হিসেবে কাজ করতেন।
এ ঘটনায় আহত ব্যাক্তিরা হলেন নিহতের আপন ছোট ভাই ফাহিম (১২) এবং তার বাবা নাজির হোসেন (৪৫)।
নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, ওই ট্যাংকলরির মালিক জাহাঙ্গীর হোসেন তাদের গতকাল রোববার রাতে গাড়ি থেকে অবশিষ্ট ফার্নিস তেল সংগ্রহ করে গাড়িটি পরিষ্কার করে দিতে বলে। তার কথামত ফাহিম গাড়ি পরিষ্কার করতে গেলে ট্যাংকলরীর ট্যাংকির হাউজে পড়ে যান। ফাহিমকে উদ্ধার করতে হাউজে নামেন তার বাবা নাজির হোসেন। ফাহিমকে উদ্ধার করতে গিয়ে তার বাবা নাজিরও ট্যাংকিতে পরে যান। পরবর্তীতে বাবাকে বাঁচাতে বড় ছেলে সাঈদও ট্যাংকির হাউজে নামেন। পরবর্তীতে তাদের দু’জনেরই কোনো হদিস না মিললে এলাকাবাসী আহত অবস্থায় তাদের তিনজনকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। পরে সাঈদের অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত না:গঞ্জ ৩০০ শয্যা খানপুর হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাঈদকে মৃত ঘোষণা করেন।
এদিকে মেঘনা পেট্রোলিয়াম ডিপোর ইনচার্জ লুৎফর রহমান জানান, আমি বিষয়টি জানিনা আপনার কাছ থেকেই জানতে পারলাম। তবে এ ধরনের মৃত্যুর বিষয়টি অত্যান্ত দুঃখজনক। আমাদের ডিপোগুলোতে ডিজেল, অকটেন, পেট্রোল ছাড়া অন্য কোন তেল ট্যাংকলরিতে লোড করিনা। এটি ফার্নেস অয়েল কালো তেল। এটি আমাদের আওতাভুক্ত নয়।
এ বিষয়ে সিদ্ধিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মোস্তফা জানান, ট্যাংকলরির ট্যাংকির ভেতর গ্যাসের চাপ থাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। বর্তমানে নিহতের বাবা নাজির হােসেন সুস্থ রয়েছেন। আর ফাহিমের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

ট্যাংকলরির ট্যাংকির বিষাক্ত গ্যাসে যুবকের মৃত্যু, আহত ২

আপলোড সময় : ০২:৩৫:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ নভেম্বর ২০২৩

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ট্যাংকলরির ট্যাংকির ভিতর থেকে ফার্নিস অয়েল সংগ্রহ করতে গিয়ে বিষাক্ত গ্যাসে আবু সাঈদ (২৫) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।
তবে এ ঘটনায় নিহত সাঈদের ছোটভাই এবং তার বাবা আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।
সোমবার (২৭ নভেম্বর) সকালে নাসিক ৬ নং ওয়ার্ডের আদমজী এসও রোড এলাকায় মেঘনা ডিপোর পাশে অবস্থিত একটি বালুর মাঠে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত আবু সাঈদ ওই এলাকার নাজির হোসেনের ছেলে। তিনি এসও রোড এলাকায় ইসমাঈলের তেলের গাড়ির ড্রাইভার হিসেবে কাজ করতেন।
এ ঘটনায় আহত ব্যাক্তিরা হলেন নিহতের আপন ছোট ভাই ফাহিম (১২) এবং তার বাবা নাজির হোসেন (৪৫)।
নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, ওই ট্যাংকলরির মালিক জাহাঙ্গীর হোসেন তাদের গতকাল রোববার রাতে গাড়ি থেকে অবশিষ্ট ফার্নিস তেল সংগ্রহ করে গাড়িটি পরিষ্কার করে দিতে বলে। তার কথামত ফাহিম গাড়ি পরিষ্কার করতে গেলে ট্যাংকলরীর ট্যাংকির হাউজে পড়ে যান। ফাহিমকে উদ্ধার করতে হাউজে নামেন তার বাবা নাজির হোসেন। ফাহিমকে উদ্ধার করতে গিয়ে তার বাবা নাজিরও ট্যাংকিতে পরে যান। পরবর্তীতে বাবাকে বাঁচাতে বড় ছেলে সাঈদও ট্যাংকির হাউজে নামেন। পরবর্তীতে তাদের দু’জনেরই কোনো হদিস না মিললে এলাকাবাসী আহত অবস্থায় তাদের তিনজনকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। পরে সাঈদের অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত না:গঞ্জ ৩০০ শয্যা খানপুর হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাঈদকে মৃত ঘোষণা করেন।
এদিকে মেঘনা পেট্রোলিয়াম ডিপোর ইনচার্জ লুৎফর রহমান জানান, আমি বিষয়টি জানিনা আপনার কাছ থেকেই জানতে পারলাম। তবে এ ধরনের মৃত্যুর বিষয়টি অত্যান্ত দুঃখজনক। আমাদের ডিপোগুলোতে ডিজেল, অকটেন, পেট্রোল ছাড়া অন্য কোন তেল ট্যাংকলরিতে লোড করিনা। এটি ফার্নেস অয়েল কালো তেল। এটি আমাদের আওতাভুক্ত নয়।
এ বিষয়ে সিদ্ধিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মোস্তফা জানান, ট্যাংকলরির ট্যাংকির ভেতর গ্যাসের চাপ থাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। বর্তমানে নিহতের বাবা নাজির হােসেন সুস্থ রয়েছেন। আর ফাহিমের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন