ঢাকা ০৫:২৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শিমরাইলে অলিতে-গলিতে মাদক, নেই প্রশাসনের নজরদারী

মুহাম্মদ আলী (নিজস্ব প্রতিবেদক)
মুহাম্মদ আলী (নিজস্ব প্রতিবেদক)
  • আপলোড সময় : ০৭:০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৩৩৮ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলে অলিতে-গলিতে হাত বাড়ালেই মিলছে মাদক। পূ্র্বা লের সীমানাবর্তী নদীর পাড়ের এলাকা হওয়ার মাদকের ট্রানজিটও হয়ে থাকে এখান থেকে। এখান থেকে সময় সুযোগ বুজে নারায়ণগঞ্জ ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় মাদক সরবাহ হচ্ছে। আর এসব কর্মকান্ড ও নিয়ন্ত্রন পুলিশের অসাধু কর্মকর্তা ও সোর্সদের শেল্টারে হয়ে থাকেই বলে মাদক ব্যবসায়ীরা নির্বিঘ্নে তাদের মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এরফলে মাদকের ভয়াল থাবায় এলাকার তরুন, ছাত্র ও যুব সমাজ ধ্বংসের মূখে পতিত হচ্ছে।

অন্যদিকে এ এলাকা পুলিশ সোর্সদের নিয়ন্ত্রনে থাকায় আইনশৃংখলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের ভয়ঙ্কর মাদকের চিত্রতথ্য অজানাই থেকে যাচ্ছে। মাদক ব্যবসায়ীদের কারনে এলাকায় বেড়েছে চুরি, ছিনতাই ও ডাকাতি। মাদকের এ ভয়ংকন আগ্রাসন থেকে বাচঁাতে আইনশৃংখলা বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নজরদারী দাবি করছেন স্থানীয় সাধারণ মানুষ ।
জানাগেছে, নাসিক ৪’নং ওর্য়াড শিমরাইল এলাকার চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ীরা হল, তাজজুট মিল মাঠ এলাকায়, হেরোইন, গঁাজা, ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয় করেন, তকলি স্বামী মৃত সমশের আলী, তার ছেলে আলিনুর, আফানুর, তার বোন আসমা, আলীনুরের স্ত্রী ফরিদা, আফানুরের স্ত্রী রেসু বেগম, তানিয় ও ইয়াসমিন, শাহাজান সাধু পিতা হাবিল, কারিমুন স্বামী আব্দুল কাদের, সেলিনা পিতা আব্দুর রব, শিমরাইল বৌ বাজার এলাকায় ফেনসিডিল, হেরোইন, গঁাজা, ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয় করেন, হেলেনা পিতা দবু মিয়া, তার সেল্স ম্যান হাসিনা স্বামী মমিন আলী, মোহাম্মদ আলী ও তার ভাই মুক্তার, মুক্তারের স্ত্রী, বিথী আক্তার স্বামী রুবেল, নাজমা আক্তার দেন্দি স্বামী আব্দুল আজিজ, আলমগীরের স্ত্রী শাহিদা, জাহাঙ্গীর স্ত্রী রুনা, সাহানাজ, শিউলী, মোস্তফা, পিতা শুক্কুর, ঠুন্ডি (পরি) স্বামী কালু, শাকিল পিতা জাহাঙ্গীর, শান্ত পিতা কফিলউদ্দিন, নজরুল ও তার স্ত্রী হাসু, জামিরুন স্বমী মৃত ওয়াসিম, শামিম পিতা মৃত জাবেদ আলী, সেলিম ও তার স্ত্রী টুনি, কশাই কবিরের বাতিজা মাসুদ, টেকপাড়া এলাকায় ফেনসিডিল, গঁাজা, ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয় করেন, শাহিন, টোকন, আল-আমিন, কাচঁপুর ব্রীজের পশ্চিম ঢাল(মঞ্জিল বাস স্ট্যান্ড)এলাকায়, গঁাজা, ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয় করেন, পাগলা দেলোয়ার, শাফী, মামুন পিতা সেলিম, হৃদয় পিতা কবির হোসেনসহ এলাকার মাদক সম্রাট শামিম, মমিন, পাগলা আক্তার তার ছেলে হৃদয়, সেকান্দার, সুমন, ইয়ার হোসেন, সোহাগ, শান্ত ও নিতুল।

এসকল মাদক ব্যবসায়ীদের মাদক এনে দেয়াসহ তাদের শেল্টার দিচ্ছে নারায়ণগঞ্জ ডিবি ও থানা পুলিশের কিছু সোর্সরা। তারা তাদের কাছ থেকে প্রতিদিন আর্থিক সুবিদা নেয় বলে অভিযোগ রয়েছে।
নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ এ সব মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে মামলা না দিয়ে অর্থের বিনিময়ে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এ কারনে এলাকা থেকে মাদক কমছে না। এলাকাবাসীদের বাচঁাতে স্থানীয় প্রশাসনের নজরদারী জরুরী।

এ ব্যাপারে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ওসি আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, এসব মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে থানা পুলিশ একাদিকবার অভিযান চালিয়েছি। অভিযানে বহু আসামীকে গ্রেফতার করে মামলা দিয়েছি। আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে। মাদকের সাথে আমাদের কোন আপোষ নেই।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

শিমরাইলে অলিতে-গলিতে মাদক, নেই প্রশাসনের নজরদারী

আপলোড সময় : ০৭:০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলে অলিতে-গলিতে হাত বাড়ালেই মিলছে মাদক। পূ্র্বা লের সীমানাবর্তী নদীর পাড়ের এলাকা হওয়ার মাদকের ট্রানজিটও হয়ে থাকে এখান থেকে। এখান থেকে সময় সুযোগ বুজে নারায়ণগঞ্জ ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় মাদক সরবাহ হচ্ছে। আর এসব কর্মকান্ড ও নিয়ন্ত্রন পুলিশের অসাধু কর্মকর্তা ও সোর্সদের শেল্টারে হয়ে থাকেই বলে মাদক ব্যবসায়ীরা নির্বিঘ্নে তাদের মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এরফলে মাদকের ভয়াল থাবায় এলাকার তরুন, ছাত্র ও যুব সমাজ ধ্বংসের মূখে পতিত হচ্ছে।

অন্যদিকে এ এলাকা পুলিশ সোর্সদের নিয়ন্ত্রনে থাকায় আইনশৃংখলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের ভয়ঙ্কর মাদকের চিত্রতথ্য অজানাই থেকে যাচ্ছে। মাদক ব্যবসায়ীদের কারনে এলাকায় বেড়েছে চুরি, ছিনতাই ও ডাকাতি। মাদকের এ ভয়ংকন আগ্রাসন থেকে বাচঁাতে আইনশৃংখলা বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নজরদারী দাবি করছেন স্থানীয় সাধারণ মানুষ ।
জানাগেছে, নাসিক ৪’নং ওর্য়াড শিমরাইল এলাকার চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ীরা হল, তাজজুট মিল মাঠ এলাকায়, হেরোইন, গঁাজা, ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয় করেন, তকলি স্বামী মৃত সমশের আলী, তার ছেলে আলিনুর, আফানুর, তার বোন আসমা, আলীনুরের স্ত্রী ফরিদা, আফানুরের স্ত্রী রেসু বেগম, তানিয় ও ইয়াসমিন, শাহাজান সাধু পিতা হাবিল, কারিমুন স্বামী আব্দুল কাদের, সেলিনা পিতা আব্দুর রব, শিমরাইল বৌ বাজার এলাকায় ফেনসিডিল, হেরোইন, গঁাজা, ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয় করেন, হেলেনা পিতা দবু মিয়া, তার সেল্স ম্যান হাসিনা স্বামী মমিন আলী, মোহাম্মদ আলী ও তার ভাই মুক্তার, মুক্তারের স্ত্রী, বিথী আক্তার স্বামী রুবেল, নাজমা আক্তার দেন্দি স্বামী আব্দুল আজিজ, আলমগীরের স্ত্রী শাহিদা, জাহাঙ্গীর স্ত্রী রুনা, সাহানাজ, শিউলী, মোস্তফা, পিতা শুক্কুর, ঠুন্ডি (পরি) স্বামী কালু, শাকিল পিতা জাহাঙ্গীর, শান্ত পিতা কফিলউদ্দিন, নজরুল ও তার স্ত্রী হাসু, জামিরুন স্বমী মৃত ওয়াসিম, শামিম পিতা মৃত জাবেদ আলী, সেলিম ও তার স্ত্রী টুনি, কশাই কবিরের বাতিজা মাসুদ, টেকপাড়া এলাকায় ফেনসিডিল, গঁাজা, ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয় করেন, শাহিন, টোকন, আল-আমিন, কাচঁপুর ব্রীজের পশ্চিম ঢাল(মঞ্জিল বাস স্ট্যান্ড)এলাকায়, গঁাজা, ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয় করেন, পাগলা দেলোয়ার, শাফী, মামুন পিতা সেলিম, হৃদয় পিতা কবির হোসেনসহ এলাকার মাদক সম্রাট শামিম, মমিন, পাগলা আক্তার তার ছেলে হৃদয়, সেকান্দার, সুমন, ইয়ার হোসেন, সোহাগ, শান্ত ও নিতুল।

এসকল মাদক ব্যবসায়ীদের মাদক এনে দেয়াসহ তাদের শেল্টার দিচ্ছে নারায়ণগঞ্জ ডিবি ও থানা পুলিশের কিছু সোর্সরা। তারা তাদের কাছ থেকে প্রতিদিন আর্থিক সুবিদা নেয় বলে অভিযোগ রয়েছে।
নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ এ সব মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে মামলা না দিয়ে অর্থের বিনিময়ে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এ কারনে এলাকা থেকে মাদক কমছে না। এলাকাবাসীদের বাচঁাতে স্থানীয় প্রশাসনের নজরদারী জরুরী।

এ ব্যাপারে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ওসি আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, এসব মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে থানা পুলিশ একাদিকবার অভিযান চালিয়েছি। অভিযানে বহু আসামীকে গ্রেফতার করে মামলা দিয়েছি। আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে। মাদকের সাথে আমাদের কোন আপোষ নেই।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন