ঢাকা ০৫:০৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আড়াইহাজারে ভিকটিমকে মেরে ফেলার হুমকী, থানায় জিডি

রফিকুল ইসলাম রানা (নিজস্ব প্রতিবেদক)
রফিকুল ইসলাম রানা (নিজস্ব প্রতিবেদক)
  • আপলোড সময় : ০৭:৩১:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪
  • / ২৬৪ বার পড়া হয়েছে

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজরে একটি হত্যা চেষ্টার মামলার ভিকটিমকে হুমকী দেয়ার অভিযোগে থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছেন মামলার বাদী মোসাঃ মনোয়ারা বেগম। তিনি বুধবার তার মেয়ে রোজিনা আক্তার (৩৫) এর জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সাধারণ ডায়েরীটি দায়ের করেন।
সাধারণ ডায়েরী লেখা এবং বাদীর মৌখিক ভাষ্য অনুযায়ি, উপজেলার হাইজাদী ইউনিয়নের দড়িসিঙ্গারপুর গ্রামে মনোয়ারা বেগমের বাড়ী। তার মেয়ে রোজিনা আক্তার (৩৫) এর বিয়ে হয় পার্শ্ববতর্ িকাহিন্দী গ্রামের আবুল হোসেনের সাথে। রোজিনার স্বামী মালয়েলিয়া প্রবাসী। সম্প্রতি তার দেবর শহিদুল্লাহ, জা সুফিয়া , ভাসুর মোতালিবসহ পরিবারের সবাই মিলে রোজিনাকে পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে এবং শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করে। এ ব্যাপারে মনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ আদালতে একটি মামলা দায়ের করলে ওই মামলায় রোজিনার দেবর শহিদুল্লাহ বর্তমানে জেল হাজতে আছেন। এদিকে ছেলেকে জামিন করাতে না পেরে রোজিনার শ্বশুর মঙ্গল আলীসহ পরিবারের অপরাপর সদস্যরা রোজিনাকে প্রাণে মেরে ফেলা সহ বিভিন্ন ভাবে জান মালের ক্ষতি সাধন করার হুমকী প্রদর্শণ করছে। তারা এই বলে হুমকী দিচ্ছে যে, শহিদুল্লাহ জামিনে বের হতে পারলেই রোজিনাকে প্রাণে মেরে ফেলার ব্যবস্থা করা হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

আড়াইহাজারে ভিকটিমকে মেরে ফেলার হুমকী, থানায় জিডি

আপলোড সময় : ০৭:৩১:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজরে একটি হত্যা চেষ্টার মামলার ভিকটিমকে হুমকী দেয়ার অভিযোগে থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছেন মামলার বাদী মোসাঃ মনোয়ারা বেগম। তিনি বুধবার তার মেয়ে রোজিনা আক্তার (৩৫) এর জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সাধারণ ডায়েরীটি দায়ের করেন।
সাধারণ ডায়েরী লেখা এবং বাদীর মৌখিক ভাষ্য অনুযায়ি, উপজেলার হাইজাদী ইউনিয়নের দড়িসিঙ্গারপুর গ্রামে মনোয়ারা বেগমের বাড়ী। তার মেয়ে রোজিনা আক্তার (৩৫) এর বিয়ে হয় পার্শ্ববতর্ িকাহিন্দী গ্রামের আবুল হোসেনের সাথে। রোজিনার স্বামী মালয়েলিয়া প্রবাসী। সম্প্রতি তার দেবর শহিদুল্লাহ, জা সুফিয়া , ভাসুর মোতালিবসহ পরিবারের সবাই মিলে রোজিনাকে পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে এবং শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করে। এ ব্যাপারে মনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ আদালতে একটি মামলা দায়ের করলে ওই মামলায় রোজিনার দেবর শহিদুল্লাহ বর্তমানে জেল হাজতে আছেন। এদিকে ছেলেকে জামিন করাতে না পেরে রোজিনার শ্বশুর মঙ্গল আলীসহ পরিবারের অপরাপর সদস্যরা রোজিনাকে প্রাণে মেরে ফেলা সহ বিভিন্ন ভাবে জান মালের ক্ষতি সাধন করার হুমকী প্রদর্শণ করছে। তারা এই বলে হুমকী দিচ্ছে যে, শহিদুল্লাহ জামিনে বের হতে পারলেই রোজিনাকে প্রাণে মেরে ফেলার ব্যবস্থা করা হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন