ঢাকা ০৮:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে ডাকাতির ঘটনায় আটক ২০

মল্লিক মোঃ জামান (জেলা প্রতিনিধি বাগেরহাট)
মল্লিক মোঃ জামান (জেলা প্রতিনিধি বাগেরহাট)
  • আপলোড সময় : ০৭:২৪:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ এপ্রিল ২০২৪
  • / ২৫১ বার পড়া হয়েছে

বাগেরহাটের রামপালে বাংলাদেশ ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ কোম্পানি পাওয়ার প্লান্টে ডাকাতির উদ্দেশ্যে আনসার সদস্য ও নিরাপত্তারক্ষীদের উপর হামলার ঘটনায় জড়িত ২০ জনকে আটক করেছে রামপাল থানা পুলিশ।

শুক্রবার (৫ এপ্রিল) সকালে আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে বাগেরহাট জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। আটক ও কারাগারে পাঠানোর বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন রামপাল থানার অফিসার ইনচার্জ সোমেন দাস।

আটককৃতরা হলেন- উপজেলার গৌরম্ভা ইউনিয়নের কৈগরদাসকাঠি এলাকার মুনছুর গাজীর ছেলে আছাবুর গাজী(৩০), রেজাউল শেখের ছেলে রাঙ্গা শেখ(৩৮), আজগর গাজীর ছেলে রাজু(৩৫), সিদ্দিক শেখের ছেলে মুক্তার(৩২), কাপাশডাঙ্গা এলাকার হাসান শেখের ছেলে মোঃ মানিক শেখ(৩৫),ওমর গাজীর ছেলে ফারুক গাজী(৪৭), জুলফিকার মোল্যার ছেলে জারিয়াত মোল্লা(৪৬), মৃত গোলাম মোস্তফার ছেলে এসকেন্দার শেখ(৪৩), হাবির ছেলে আহাদ আলী(৩৮), মৃত আনার আলী গাজীর ছেলে মোঃ ফজলু গাজী(৫৫), মোঃ হাফিজ শেখের ছেলে মোঃ সালাম শেখ(৩০), মৃত আনার আলী গাজীর ছেলে মোঃ মনি গাজী(৪০), সাইফুল শেখের ছেলে মোঃ নূরনবী শেখ(১৯), মৃত হাদী মোল্লার ছেলে মোঃ আহাদ মোল্লা(৩৩), মোঃ কুদ্দুস আলী গাজীর ছেলে মোঃ আব্দুল্লাহ(৩৩), মোঃ বিল্লাল মোল্লার ছেলে মোঃ বাইজিদ মোল্লা(৩৭), ছায়রাবাদ এলাকার মোঃ তাহিদ শেখের ছেলে মোঃ রুবেল শেখ(২৬), গৌরম্ভা এলাকার মোঃ আবুল বাশার গাজীর ছেলে মোঃ মাজহারুল গাজী রাজ(২৮), বর্ণি এলাকার মোঃ শুকুর গাজীর ছেলে মোঃ আছাবুর গাজী(৩০) ও বড়দূর্গাপুর এলাকার পিরালী শেখের ছেলে আকরাম শেখ(৪৭)।

ওসি সোমেন দাস বলেন, গত বুধবার (৩ এপ্রিল) রাত ১১টার দিকে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের আবাসিক ভবনের গেটে ৪০-৫০ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের দামি জিনিসপত্র ডাকাতি করে নেওয়ার জন্য জোরপূর্বক প্রবেশ করে। এসময় তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে দায়িত্বরত নিরাপত্তাকর্মীরা তাদের বাধা দিলে তারা নিরাপত্তাকর্মীদের উপর হামলা চালায়। তাদের ডাক চিৎকারে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা এসে তাদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে। এসময় তারা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আনসার সদস্য ও নিরাপত্তাকর্মীদের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতারি মারধর করে রক্তাক্ত জখম করে। রাষ্ট্রীয় সম্পদ ও জানমাল রক্ষার্থে আনসার সদস্যরা ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ হামলায় আহতদের উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও রামপাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।
দুষ্কৃতকারী দল হামলা চালিয়ে এ সময় তারা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে থেকে বিভিন্ন সাইজের ১,৫৪২( এক হাজার পাঁচশত বিয়াল্লিশ) কেজি লোহার রড নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।

তিনি আরও বলেন, এ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার পর তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। এ ঘটনায় জড়িত প্রকৃত অপরাধীদের সনাক্ত ও আটকের চেষ্টা চলছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে ডাকাতির ঘটনায় আটক ২০

আপলোড সময় : ০৭:২৪:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ এপ্রিল ২০২৪

বাগেরহাটের রামপালে বাংলাদেশ ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ কোম্পানি পাওয়ার প্লান্টে ডাকাতির উদ্দেশ্যে আনসার সদস্য ও নিরাপত্তারক্ষীদের উপর হামলার ঘটনায় জড়িত ২০ জনকে আটক করেছে রামপাল থানা পুলিশ।

শুক্রবার (৫ এপ্রিল) সকালে আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে বাগেরহাট জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। আটক ও কারাগারে পাঠানোর বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন রামপাল থানার অফিসার ইনচার্জ সোমেন দাস।

আটককৃতরা হলেন- উপজেলার গৌরম্ভা ইউনিয়নের কৈগরদাসকাঠি এলাকার মুনছুর গাজীর ছেলে আছাবুর গাজী(৩০), রেজাউল শেখের ছেলে রাঙ্গা শেখ(৩৮), আজগর গাজীর ছেলে রাজু(৩৫), সিদ্দিক শেখের ছেলে মুক্তার(৩২), কাপাশডাঙ্গা এলাকার হাসান শেখের ছেলে মোঃ মানিক শেখ(৩৫),ওমর গাজীর ছেলে ফারুক গাজী(৪৭), জুলফিকার মোল্যার ছেলে জারিয়াত মোল্লা(৪৬), মৃত গোলাম মোস্তফার ছেলে এসকেন্দার শেখ(৪৩), হাবির ছেলে আহাদ আলী(৩৮), মৃত আনার আলী গাজীর ছেলে মোঃ ফজলু গাজী(৫৫), মোঃ হাফিজ শেখের ছেলে মোঃ সালাম শেখ(৩০), মৃত আনার আলী গাজীর ছেলে মোঃ মনি গাজী(৪০), সাইফুল শেখের ছেলে মোঃ নূরনবী শেখ(১৯), মৃত হাদী মোল্লার ছেলে মোঃ আহাদ মোল্লা(৩৩), মোঃ কুদ্দুস আলী গাজীর ছেলে মোঃ আব্দুল্লাহ(৩৩), মোঃ বিল্লাল মোল্লার ছেলে মোঃ বাইজিদ মোল্লা(৩৭), ছায়রাবাদ এলাকার মোঃ তাহিদ শেখের ছেলে মোঃ রুবেল শেখ(২৬), গৌরম্ভা এলাকার মোঃ আবুল বাশার গাজীর ছেলে মোঃ মাজহারুল গাজী রাজ(২৮), বর্ণি এলাকার মোঃ শুকুর গাজীর ছেলে মোঃ আছাবুর গাজী(৩০) ও বড়দূর্গাপুর এলাকার পিরালী শেখের ছেলে আকরাম শেখ(৪৭)।

ওসি সোমেন দাস বলেন, গত বুধবার (৩ এপ্রিল) রাত ১১টার দিকে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের আবাসিক ভবনের গেটে ৪০-৫০ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের দামি জিনিসপত্র ডাকাতি করে নেওয়ার জন্য জোরপূর্বক প্রবেশ করে। এসময় তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে দায়িত্বরত নিরাপত্তাকর্মীরা তাদের বাধা দিলে তারা নিরাপত্তাকর্মীদের উপর হামলা চালায়। তাদের ডাক চিৎকারে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা এসে তাদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে। এসময় তারা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আনসার সদস্য ও নিরাপত্তাকর্মীদের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতারি মারধর করে রক্তাক্ত জখম করে। রাষ্ট্রীয় সম্পদ ও জানমাল রক্ষার্থে আনসার সদস্যরা ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ হামলায় আহতদের উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও রামপাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।
দুষ্কৃতকারী দল হামলা চালিয়ে এ সময় তারা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে থেকে বিভিন্ন সাইজের ১,৫৪২( এক হাজার পাঁচশত বিয়াল্লিশ) কেজি লোহার রড নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।

তিনি আরও বলেন, এ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার পর তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। এ ঘটনায় জড়িত প্রকৃত অপরাধীদের সনাক্ত ও আটকের চেষ্টা চলছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন