ঢাকা ০৩:২০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ওমানে স্ট্রোক করে কোম্পানীগঞ্জের যুবকের মৃত্যু

মোহাম্মদ আবু নাছের (জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী)
মোহাম্মদ আবু নাছের (জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী)
  • আপলোড সময় : ১০:৫৩:২৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪
  • / ২২৬ বার পড়া হয়েছে

ওমানে স্ট্রোক করে মো.রাসেল উল্যাহ নামে (২৮) নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (৫ জুন) দুপুরের দিকে ওমানের সালালা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বর্তমানে নিহতের মরদেহ সুলতান কাবুজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে।

নিহত রাসেল নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের সিরাজপুর ইউনিয়নের ৮নম্বর ওয়ার্ডের শাহাজাদপুর গ্রামের সিরাজ মিয়ার ছেলে।

সিরাজপুর ইউনিয়নের ৮নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) আব্দুল হান্নান টিপু নিহতের ভাইয়ের বরাত দিয়ে জানান, ৩ বছর আগে জীবিকার তাগিদে ওমান পাড়ি জমান রাসেল। তিনি তার আরও দুই ভাইয়ের সাথে সালালাতে বাগানে কাজ করতেন। বুধবার সকালে সে বাগানে কাজ করার সময় অসুস্থতা বোধ করলে তার ভাই আনিছ ও সবুজকে জানান তাকে হাসপাতাল নিয়ে যেতে। এরপর সে রুমে এসে নাশতা করার সময় বমি করেন। পরবর্তীতে সেখানে সে ঘুমিয়ে পড়েন। পরে তার ভাই এসে দাখেন সে ঘুমের মধ্যে স্ট্রোক করে মারা গেছে। পরবর্তীতে নিহতের বড় ভাই তাকে স্থানীয় সুলতান কাবুজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

সিরাজপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন মিকন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে। তিনি বলেন, তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিহতের পরিবার মরদেহ দেশে আনতে সরকারের সহযোতিতা কামনা করেছেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

ওমানে স্ট্রোক করে কোম্পানীগঞ্জের যুবকের মৃত্যু

আপলোড সময় : ১০:৫৩:২৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪

ওমানে স্ট্রোক করে মো.রাসেল উল্যাহ নামে (২৮) নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (৫ জুন) দুপুরের দিকে ওমানের সালালা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বর্তমানে নিহতের মরদেহ সুলতান কাবুজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে।

নিহত রাসেল নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের সিরাজপুর ইউনিয়নের ৮নম্বর ওয়ার্ডের শাহাজাদপুর গ্রামের সিরাজ মিয়ার ছেলে।

সিরাজপুর ইউনিয়নের ৮নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) আব্দুল হান্নান টিপু নিহতের ভাইয়ের বরাত দিয়ে জানান, ৩ বছর আগে জীবিকার তাগিদে ওমান পাড়ি জমান রাসেল। তিনি তার আরও দুই ভাইয়ের সাথে সালালাতে বাগানে কাজ করতেন। বুধবার সকালে সে বাগানে কাজ করার সময় অসুস্থতা বোধ করলে তার ভাই আনিছ ও সবুজকে জানান তাকে হাসপাতাল নিয়ে যেতে। এরপর সে রুমে এসে নাশতা করার সময় বমি করেন। পরবর্তীতে সেখানে সে ঘুমিয়ে পড়েন। পরে তার ভাই এসে দাখেন সে ঘুমের মধ্যে স্ট্রোক করে মারা গেছে। পরবর্তীতে নিহতের বড় ভাই তাকে স্থানীয় সুলতান কাবুজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

সিরাজপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন মিকন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে। তিনি বলেন, তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিহতের পরিবার মরদেহ দেশে আনতে সরকারের সহযোতিতা কামনা করেছেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন