ঢাকা ০৫:২৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন থেকে পদত্যাগ

মো: সাদ্দাম হোসেন মুন্না খান (নিজস্ব প্রতিবেদক)
মো: সাদ্দাম হোসেন মুন্না খান (নিজস্ব প্রতিবেদক)
  • আপলোড সময় : ০৪:১৪:৩৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৩১৮ বার পড়া হয়েছে

সাংগঠনিক অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতা চরম পর্যায়ে পৌছলে এবং একক আধিপত্য বিস্তার সহ মানুষের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও হয়রানীমূলক কার্যকলাপ অব্যাহত রাখায় নারায়ণগঞ্জের জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশনের সভাপতি সুলতান মাহমুদের বিরুদ্ধে অনাস্থাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়ে সংগঠন থেকে পদত্যাগ করেছেন সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম।

তিনি তার পদত্যাগ পত্রে আরও উল্লেখ করেন একজন স্বাধীনতা বিরোধী মানুষ সুলতান মাহমুদ। তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকান্ডের মামলাও রয়েছে। ভেজাল বিরোধী সংগঠনের নাম ব্যবহার করে অনৈতিক কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে। সুলতান মাহমুদকে বহুবার শোধরানোর চেষ্টা করেও কাজ হয়নি বরং সাধারণ সম্পাদনের কোন কথাই তিনি কর্ণপাত করেনা বরং তার অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। মানসম্মান নিয়ে বাঁচার কথা বলে জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে পদত্যাগ করেন আমিনুল ইসলাম। তিনি বলেন, তার নাম ঠিকানা ব্যবহার করে কোন ধরনের অপরাধমূলক কার্যকলাপ করে থাকে তাহলে এর দায়ভার আমার না। উক্ত পদত্যাগ পত্রটি গত ২৮ সেপ্টেম্বর আমিনুল ইসলামের ফেসবুকে পোস্ট করেন এবং কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান সহ নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির ই-মেইলেও প্রেরণ করেছে বলে জানা যায়। উক্ত পদত্যাগের পর থেকে স্বাধীনতার চেতনায় বিশ্বাসী আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ফেসবুক আইডিতে সুলতান মাহমুদ ও তার সাঙ্গ পাঙ্গরা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। উল্লেখ্য যে, ভেজাইল্যা সুলতান মাহমুদের বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানায় দুটি নাশকতার মামলা রয়েছে। নারায়ণগঞ্জ আদালতেও মানহানী সহ কয়েকটি মামলা চলমান রয়েছে। এছাড়াও ডিসি এসপি সহ বিভিন্ন থানায় সুলতানের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। তারপরও সুলতান মাহমুদ থেমে নেই। বরং হুংকার দিয়ে মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা মোকদ্দমার ভয়ভীতি প্রদর্শন করেই যাচ্ছে। এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে সচেতন মহল।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন থেকে পদত্যাগ

আপলোড সময় : ০৪:১৪:৩৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর ২০২৩

সাংগঠনিক অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতা চরম পর্যায়ে পৌছলে এবং একক আধিপত্য বিস্তার সহ মানুষের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও হয়রানীমূলক কার্যকলাপ অব্যাহত রাখায় নারায়ণগঞ্জের জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশনের সভাপতি সুলতান মাহমুদের বিরুদ্ধে অনাস্থাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়ে সংগঠন থেকে পদত্যাগ করেছেন সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম।

তিনি তার পদত্যাগ পত্রে আরও উল্লেখ করেন একজন স্বাধীনতা বিরোধী মানুষ সুলতান মাহমুদ। তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকান্ডের মামলাও রয়েছে। ভেজাল বিরোধী সংগঠনের নাম ব্যবহার করে অনৈতিক কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে। সুলতান মাহমুদকে বহুবার শোধরানোর চেষ্টা করেও কাজ হয়নি বরং সাধারণ সম্পাদনের কোন কথাই তিনি কর্ণপাত করেনা বরং তার অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। মানসম্মান নিয়ে বাঁচার কথা বলে জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে পদত্যাগ করেন আমিনুল ইসলাম। তিনি বলেন, তার নাম ঠিকানা ব্যবহার করে কোন ধরনের অপরাধমূলক কার্যকলাপ করে থাকে তাহলে এর দায়ভার আমার না। উক্ত পদত্যাগ পত্রটি গত ২৮ সেপ্টেম্বর আমিনুল ইসলামের ফেসবুকে পোস্ট করেন এবং কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান সহ নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির ই-মেইলেও প্রেরণ করেছে বলে জানা যায়। উক্ত পদত্যাগের পর থেকে স্বাধীনতার চেতনায় বিশ্বাসী আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ফেসবুক আইডিতে সুলতান মাহমুদ ও তার সাঙ্গ পাঙ্গরা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। উল্লেখ্য যে, ভেজাইল্যা সুলতান মাহমুদের বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানায় দুটি নাশকতার মামলা রয়েছে। নারায়ণগঞ্জ আদালতেও মানহানী সহ কয়েকটি মামলা চলমান রয়েছে। এছাড়াও ডিসি এসপি সহ বিভিন্ন থানায় সুলতানের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। তারপরও সুলতান মাহমুদ থেমে নেই। বরং হুংকার দিয়ে মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা মোকদ্দমার ভয়ভীতি প্রদর্শন করেই যাচ্ছে। এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে সচেতন মহল।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন