ঢাকা ০৩:৪২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডেমরায় মানসিক রোগীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

মোঃ সালে আহমেদ (নিজস্ব প্রতিবেদক)
মোঃ সালে আহমেদ (নিজস্ব প্রতিবেদক)
  • আপলোড সময় : ০৬:২৫:৩০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ১২৭২ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর ডেমরায় মো. সোহেল মন্সি (৪০) নামে এক মানসিক রোগীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার বিকালে বামৈল কবরস্থান সংলগ্ন মৃত শেখ আব্দুল মালেক মুন্সির বাড়ীর ঘর থেকে ওই লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি আব্দুল মালেক মুন্সির ছেলে। মৃতের চোখ , মুখ ও শরীর ফুলে ফেঁপে গেছে। তবে ঘটনাস্থলে এ মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি। লাশের পড়নে ছিল নীল টি—সার্ট ও সাদা চেক লুঙ্গি। এদিকে শুক্রবার বিকালেই সুরতহাল শেষে লাশ ময়না তদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ। তবে প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারনা লাশটি ৩ দিন ধরে ঘরে পরে আছে। বাড়ীটিতে মৃত সোহেল মুন্সি তার ছোট ভাই জুয়েল সহ বসবাস করতেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। তবে গত ৭/৮ দিন ধরে জুয়েল গ্রামের বাড়ীতে গিয়েছেন। তাদের গ্রামের বাড়ী কুমিল্লার বাঙ্গরা থানা এলাকায়।

মৃতের বড় বোন হাবিবা আক্তার রুমি জানায়, জন্মের পর থেকেই সোহেল মানসিকভাবে অসুস্থ। প্রায় ৩ বছর আগে আকলিমা সহ আমাদের দুই বোনকে বাড়ী থেকে মারধর করে বের করে দেয় সে। বিগত ১৫ বছর আগে তার স্ত্রী চলে যাওয়ার পর সে আরও বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ে। আজকে এলাকাবাসীর কাছ থেকে ভাইয়ের মৃত্যুর খবর পেয়ে এসেছি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ডেমরা থানার অফিসার ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম জানায়,লাশের দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী শুক্রবার দুপুরে থানায় খবর দেয়। ময়না তদন্ত রিপোর্টের ভিত্তিতে এ মৃত্যুর আসল রহস্য বের হবে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

ডেমরায় মানসিক রোগীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

আপলোড সময় : ০৬:২৫:৩০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩

রাজধানীর ডেমরায় মো. সোহেল মন্সি (৪০) নামে এক মানসিক রোগীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার বিকালে বামৈল কবরস্থান সংলগ্ন মৃত শেখ আব্দুল মালেক মুন্সির বাড়ীর ঘর থেকে ওই লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি আব্দুল মালেক মুন্সির ছেলে। মৃতের চোখ , মুখ ও শরীর ফুলে ফেঁপে গেছে। তবে ঘটনাস্থলে এ মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি। লাশের পড়নে ছিল নীল টি—সার্ট ও সাদা চেক লুঙ্গি। এদিকে শুক্রবার বিকালেই সুরতহাল শেষে লাশ ময়না তদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ। তবে প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারনা লাশটি ৩ দিন ধরে ঘরে পরে আছে। বাড়ীটিতে মৃত সোহেল মুন্সি তার ছোট ভাই জুয়েল সহ বসবাস করতেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। তবে গত ৭/৮ দিন ধরে জুয়েল গ্রামের বাড়ীতে গিয়েছেন। তাদের গ্রামের বাড়ী কুমিল্লার বাঙ্গরা থানা এলাকায়।

মৃতের বড় বোন হাবিবা আক্তার রুমি জানায়, জন্মের পর থেকেই সোহেল মানসিকভাবে অসুস্থ। প্রায় ৩ বছর আগে আকলিমা সহ আমাদের দুই বোনকে বাড়ী থেকে মারধর করে বের করে দেয় সে। বিগত ১৫ বছর আগে তার স্ত্রী চলে যাওয়ার পর সে আরও বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ে। আজকে এলাকাবাসীর কাছ থেকে ভাইয়ের মৃত্যুর খবর পেয়ে এসেছি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ডেমরা থানার অফিসার ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম জানায়,লাশের দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী শুক্রবার দুপুরে থানায় খবর দেয়। ময়না তদন্ত রিপোর্টের ভিত্তিতে এ মৃত্যুর আসল রহস্য বের হবে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন