ঢাকা ০৩:৩৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কেরানীগঞ্জে কাঁচামাল ব্যবসায়ীর ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার

মো: শাহিন (নিজস্ব প্রতিবেদক)
মো: শাহিন (নিজস্ব প্রতিবেদক)
  • আপলোড সময় : ০৮:২৬:০১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৪৪২ বার পড়া হয়েছে

ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের আগানগর ইউনিয়নের আমবাগিচা খালপাড় এলাকা থেকে মোঃ শুক্কুর মিয়া (৩২) নামের কাঁচামাল ব্যবসায়ীর ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। নিহত শুক্কুর মিয়া ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জ থানার চর মধ্যেরচর এলাকার ওয়াজদ্দিনের ছেলে।

রবিবার (১ অক্টোবর) সকাল সাড়ে সাতটায় দিকে আমবাগিচা খালপার রাস্তার উপর থেকে লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরী করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ। ।

নিহতের মামাত ভাই মুন্না জানান, আমার ভাই শুক্কুর মিয়া প্রতিদিন রাজধানীর কাওরান বাজার ও শ্যামবাজার এলাকা থেকে কাচামাল পাইকারী ক্রয় করে, নবাবগঞ্জ থানার বাড়িখালী বাজারে বিক্রি করতেন। ভাই মালামাল ক্রয় করার জন্য রাতেই চলে আসতেন রাজধানীতে। সকালে মালামাল নিয়ে নবাবগঞ্জ বাড়িখালী বাজারে আসতেন। প্রতিদিনের ন্যায় শনিবার রাতে আমার ভাই শুক্কুর মিয়া রাজধানীতে আসেন মালামাল ক্রয় করার জন্য। এখান থেকে ফেরার পথে কে বা কাহারা আমার ভাইকে এলোপাথাড়ি ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। পুলিশের কাছ থেকে খবর পেয়ে আমিসহ আমাদের আরো স্বজনরা স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে এসে আমার ভাই শুক্কুরের লাশ সনাক্ত করি।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার এস আই মোঃ জাকির হোসেন জানান, সকালে রক্তাক্ত অবস্থায় এক যুবককে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করি। ময়নাতদন্তের জন স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়ে দেই। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে সে ছিনতাইয়ের কবলে পড়েছিল বলে মনে করা হচ্ছে। নিহতের শরীরে বিভিন্ন অঙ্গে মোট ১৪ টি ধারালো ছুরির আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এই ঘটনায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

কেরানীগঞ্জে কাঁচামাল ব্যবসায়ীর ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার

আপলোড সময় : ০৮:২৬:০১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ অক্টোবর ২০২৩

ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের আগানগর ইউনিয়নের আমবাগিচা খালপাড় এলাকা থেকে মোঃ শুক্কুর মিয়া (৩২) নামের কাঁচামাল ব্যবসায়ীর ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। নিহত শুক্কুর মিয়া ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জ থানার চর মধ্যেরচর এলাকার ওয়াজদ্দিনের ছেলে।

রবিবার (১ অক্টোবর) সকাল সাড়ে সাতটায় দিকে আমবাগিচা খালপার রাস্তার উপর থেকে লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরী করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ। ।

নিহতের মামাত ভাই মুন্না জানান, আমার ভাই শুক্কুর মিয়া প্রতিদিন রাজধানীর কাওরান বাজার ও শ্যামবাজার এলাকা থেকে কাচামাল পাইকারী ক্রয় করে, নবাবগঞ্জ থানার বাড়িখালী বাজারে বিক্রি করতেন। ভাই মালামাল ক্রয় করার জন্য রাতেই চলে আসতেন রাজধানীতে। সকালে মালামাল নিয়ে নবাবগঞ্জ বাড়িখালী বাজারে আসতেন। প্রতিদিনের ন্যায় শনিবার রাতে আমার ভাই শুক্কুর মিয়া রাজধানীতে আসেন মালামাল ক্রয় করার জন্য। এখান থেকে ফেরার পথে কে বা কাহারা আমার ভাইকে এলোপাথাড়ি ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। পুলিশের কাছ থেকে খবর পেয়ে আমিসহ আমাদের আরো স্বজনরা স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে এসে আমার ভাই শুক্কুরের লাশ সনাক্ত করি।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার এস আই মোঃ জাকির হোসেন জানান, সকালে রক্তাক্ত অবস্থায় এক যুবককে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করি। ময়নাতদন্তের জন স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়ে দেই। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে সে ছিনতাইয়ের কবলে পড়েছিল বলে মনে করা হচ্ছে। নিহতের শরীরে বিভিন্ন অঙ্গে মোট ১৪ টি ধারালো ছুরির আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এই ঘটনায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন