ঢাকা ০৬:৩১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কেরানীগঞ্জে উচ্ছেদের এক ঘন্টা পর ফের অবৈধ সিএনজি স্ট্যান্ড

মো: শাহিন (নিজস্ব প্রতিবেদক)
মো: শাহিন (নিজস্ব প্রতিবেদক)
  • আপলোড সময় : ১১:৪৬:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৩০৬ বার পড়া হয়েছে

ঢাকার কেরানীগঞ্জে কদমতলী এলাকায় উচ্ছেদের এক ঘন্টা পর ফের অবৈধ সিএনজি স্ট্যান্ড। আজ রবিবার দুপুর ১২ টায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের কদমতলী গোল চত্বর এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ অবৈধ সিএনজি স্ট্যান্ড উচ্ছেদের এক ঘন্টা পর ফের অবৈধভাবে সিএনজি স্ট্যান্ড বসে। কদমতলী গোল চত্বর এলাকায় চারপাশ দখল করে মালবাহী ট্রাক, বাস, মিনি বাস, সিএনজি,অটোরিকশা ও প্রাইভেট গাড়ির স্ট্যান্ড বসিয়েছে। এতে করে প্রায় সময় কদমতলী এলাকায় দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক কিছু গাড়িচালকরা জানান, স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী নেতাদের চাঁদা দিয়েই রাস্তার পাশে গাড়ি রাখি। যারা অবৈধভাবে চাঁদা তুলছে পুলিশ তাদের ধরতে পারে না।সামনে ঈদ আমাদের এভাবে উচ্ছেদ করলে পরিবার নিয়ে খাবো কী। আমরা নিয়মিত চাঁদা দিয়েই রাস্তায় থাকি। এই চাঁদার টাকা সবাই ভাগ পায়, আর মাঝে মাঝে এসে গরীবদেরকে হয়রানি করে।

স্থানীয়রা জানান, কদমতলী এলাকায় একটি ব্যস্ততম রাস্তা কিন্তু স্থানীয় প্রভাবশালী নেতাদের ছত্রছায়া মহাসড়কের গোল চক্কর এলাকায় চারপাশ দখল করে মালবাহী ট্রাক, বাস, মিনি বাস, সিএনজি,অটোরিকশা ও প্রাইভেট গাড়ির স্ট্যান্ড বসিয়ে প্রতি গাড়ি থেকে চাঁদা উত্তোলন করে মাসে কয়েক লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন কয়েকটি প্রভাবশালী সিন্ডিকেট।

কেরানীগঞ্জ কদমতলী এলাকায় সরেজমিনে দেখা যায়, মহাসড়কের জায়গা দখল করে কয়েক জায়গায় শতাধিক অবৈধ গাড়ি স্ট্যান্ড বসিয়েছে। মহাসড়কের চার পাশেই সড়কের জায়গা দখল করে অবৈধ ট্রাক, বাস, মিনি বাস, সিএনজি, অটোরিকসা ও প্রাইভেট স্ট্যান্ড করেছেন কয়েক জন প্রভাবশালী নেতারা। এতে সড়কের যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

অবৈধ স্ট্যান্ড ও চাঁদার ভাগাভাগির বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা জেলা দক্ষিণ ট্রাফিক পুলিশ কার্যালয়ের পরিদর্শক জাকির হোসেন বলেন, এবিষয়ে আমার কোন মন্তব্য নেই।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

কেরানীগঞ্জে উচ্ছেদের এক ঘন্টা পর ফের অবৈধ সিএনজি স্ট্যান্ড

আপলোড সময় : ১১:৪৬:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ৭ এপ্রিল ২০২৪

ঢাকার কেরানীগঞ্জে কদমতলী এলাকায় উচ্ছেদের এক ঘন্টা পর ফের অবৈধ সিএনজি স্ট্যান্ড। আজ রবিবার দুপুর ১২ টায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের কদমতলী গোল চত্বর এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ অবৈধ সিএনজি স্ট্যান্ড উচ্ছেদের এক ঘন্টা পর ফের অবৈধভাবে সিএনজি স্ট্যান্ড বসে। কদমতলী গোল চত্বর এলাকায় চারপাশ দখল করে মালবাহী ট্রাক, বাস, মিনি বাস, সিএনজি,অটোরিকশা ও প্রাইভেট গাড়ির স্ট্যান্ড বসিয়েছে। এতে করে প্রায় সময় কদমতলী এলাকায় দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক কিছু গাড়িচালকরা জানান, স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী নেতাদের চাঁদা দিয়েই রাস্তার পাশে গাড়ি রাখি। যারা অবৈধভাবে চাঁদা তুলছে পুলিশ তাদের ধরতে পারে না।সামনে ঈদ আমাদের এভাবে উচ্ছেদ করলে পরিবার নিয়ে খাবো কী। আমরা নিয়মিত চাঁদা দিয়েই রাস্তায় থাকি। এই চাঁদার টাকা সবাই ভাগ পায়, আর মাঝে মাঝে এসে গরীবদেরকে হয়রানি করে।

স্থানীয়রা জানান, কদমতলী এলাকায় একটি ব্যস্ততম রাস্তা কিন্তু স্থানীয় প্রভাবশালী নেতাদের ছত্রছায়া মহাসড়কের গোল চক্কর এলাকায় চারপাশ দখল করে মালবাহী ট্রাক, বাস, মিনি বাস, সিএনজি,অটোরিকশা ও প্রাইভেট গাড়ির স্ট্যান্ড বসিয়ে প্রতি গাড়ি থেকে চাঁদা উত্তোলন করে মাসে কয়েক লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন কয়েকটি প্রভাবশালী সিন্ডিকেট।

কেরানীগঞ্জ কদমতলী এলাকায় সরেজমিনে দেখা যায়, মহাসড়কের জায়গা দখল করে কয়েক জায়গায় শতাধিক অবৈধ গাড়ি স্ট্যান্ড বসিয়েছে। মহাসড়কের চার পাশেই সড়কের জায়গা দখল করে অবৈধ ট্রাক, বাস, মিনি বাস, সিএনজি, অটোরিকসা ও প্রাইভেট স্ট্যান্ড করেছেন কয়েক জন প্রভাবশালী নেতারা। এতে সড়কের যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

অবৈধ স্ট্যান্ড ও চাঁদার ভাগাভাগির বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা জেলা দক্ষিণ ট্রাফিক পুলিশ কার্যালয়ের পরিদর্শক জাকির হোসেন বলেন, এবিষয়ে আমার কোন মন্তব্য নেই।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন